শুক্রবার, ১২ Jul ২০২৪, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
চট্টগ্রামস্থ ছাগলনাইয়া সমিতির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশেষ অভিযানে ৬ গ্যাংয়ের ৩৩ জন আটক, দেশী অস্ত্র উদ্ধার ভালো আছেন খালেদা জিয়া ঈদকে ঘিরে জাল নোট গছিয়ে দিত ওরা কুতুব‌দিয়ায় নতুন জামা পেল ১৩৫ এতিম ছাত্র-ছাত্রী মানিকছড়িতে গণ ইফতার মাহফিল সীতাকুণ্ডে লরি চাপায় পথচারী যুবক নিহত সীতাকুণ্ডে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু রামগড়ে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিজিবির পুরস্কার ও সনদ বিতরন লাইসেন্স বিহীন ফিলিং স্টেশন স্থাপন করে কার্ভাড ভ্যানে চলছে অবৈধ গ্যাস বিক্রি কাপ্তাই ব্লাড ব্যাংকের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক বিশেষ ক্যাম্পেইন জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজের মালিকপক্ষের নতুন ঘোষণা
শিশুদের বই থেকে সু চি’র জীবনী বাদ দেওয়ার দাবি

শিশুদের বই থেকে সু চি’র জীবনী বাদ দেওয়ার দাবি

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার না হওয়ায় মানবাধিকার সংগঠনগুলোর তোপের মুখে রয়েছেন সু চি। গণতন্ত্রপন্থী এবং সাহসী নারী হিসেবে সু চি’র পুরনো যে ভাবমূর্তি ছিল তা ক্ষুণ্ন হয়েছে। শান্তিতে নোবেলজয়ী এই নেত্রীকে দেওয়া কয়েকটি আন্তর্জাতিক সম্মাননা ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় এইবার ১০০ আদর্শ নারীর তালিকা থেকে সুচিকে বাদ দেওয়ার দাবি উঠেছে।

‘গুড নাইট স্টোরিজ ফর রেবেল গার্লস’ বইটিতে মারি কুরি থেকে শুরু করে হিলারি ক্লিনটন, সেরেনা উইলিয়ামসসহ বিশ্বের ১০০ জন সাহসী নারীর জীবনী অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।  গার্ডিয়ান জানায়, গত বছর যখন বইটি লেখা হয়, তখন সেটিতে অন্য ৯৯ জন নারীর পাশাপাশি সুচিকেও স্থান দেওয়ার যোগ্য ভাবা হয় এবং তাকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। কিন্তু রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি পাল্টে গেছে।

ছয় এবং তার চেয়ে বেশি বয়সী শিশুদের জন্য রচিত বইটিতে ১০০ জন নারীর প্রত্যেকের জীবনীর জন্য দুই পৃষ্ঠা করে বরাদ্দ দেওয়া আছে। সুচির পরিচয়ে বলা হয়, তিনি একজন নোবেলজয়ী এবং নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো এক সাহসী নারী।

২১ বছর ধরে গৃহবন্দি থাকা অবস্থায় জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে সু চি’র প্রতিবাদ থেকে শুরু করে তার মুক্তি এবং তার নেতৃত্ব পর্যন্ত ঘটনাগুলোকে লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। বইয়ে উল্লেখ করা হয়: ‘গৃহবন্দি থাকা অবস্থাতেই তিনি (সু চি) নিজ দেশ বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মানুষকে প্রেরণা যুগিয়েছেন, নোবেল পুরস্কার জিতে নিয়েছেন।’

বইয়ে সু চির জীবনীর অংশে তার একটি উদ্ধৃতিও দেওয়া হয়েছে। উদ্ধৃতিটি হলো: ‘আমরা যে বিশ্বে বাস করি, সেই বিশ্বের জন্য আমাদেরকে সর্বোচ্চটুকু করতে হবে।’

বইটির ফেসবুক পেজে লেনকা উজাকোভা নামের একজন লিখেছেন ‘বইয়ের ৯৯ ভাগই প্রেরণাদায়ক হলেও, বইটিতে গণহত্যায় সন্দেহভাজন কাউকে অন্তর্ভূক্ত করাটা একেবারে ন্যাক্কারজনক। এসব নারীর মাঝে অং সান সু চি’র কোনও জায়গা নেই।’

এক বিবৃতিতে লেখকরা বলেন: ‘আমরা নিবিড়ভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি এবং পরবর্তী মুদ্রণের সময় তাকে সরিয়ে দেওয়ার সম্ভাবনা বাদ দিচ্ছি না।’

গুড নাইট স্টোরিজ ফর রেবেল গার্লস বইটি সর্বপ্রথম যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়। পরে যুক্তরাজ্যে বইটি প্রকাশ করে পার্টিকুলার বুকস। গত সপ্তাহে ব্ল্যাকওয়েল বইটিকে তাদের বুক অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করে।

নোবেল শান্তি পুরস্কারসহ ১২০টিরও বেশি আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেয়েছিলেন অং সান সু চি। তার স্বামী অরিস একজন বৃটিশ। এ জন্য সু চি যখন মিয়ানমারে গৃহবন্দি অবস্থায় কাটান,তখন তার প্রতি ব্রিটিশদের সহানুভূতি ছিল বেশি। তাই তারা তাকে নানা সম্মাননায় ভূষিত করেছিল। তবে রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিকভাবে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। এ কারণে তাকে দেওয়া বৃটেনের বিভিন্ন কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রতিষ্ঠানের সম্মাননা কেড়ে নেওয়ার তোড়জোর শুরু হয়। এরইমধ্যে সু চিকে দেওয়া ফ্রিডম অব অক্সফোর্ড এবং ফ্রিডম অব দ্য সিটি অব ডাবলিন পুরস্কার ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT