বুধবার, ১৭ Jul ২০২৪, ১১:৩৮ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
চট্টগ্রামস্থ ছাগলনাইয়া সমিতির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশেষ অভিযানে ৬ গ্যাংয়ের ৩৩ জন আটক, দেশী অস্ত্র উদ্ধার ভালো আছেন খালেদা জিয়া ঈদকে ঘিরে জাল নোট গছিয়ে দিত ওরা কুতুব‌দিয়ায় নতুন জামা পেল ১৩৫ এতিম ছাত্র-ছাত্রী মানিকছড়িতে গণ ইফতার মাহফিল সীতাকুণ্ডে লরি চাপায় পথচারী যুবক নিহত সীতাকুণ্ডে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু রামগড়ে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিজিবির পুরস্কার ও সনদ বিতরন লাইসেন্স বিহীন ফিলিং স্টেশন স্থাপন করে কার্ভাড ভ্যানে চলছে অবৈধ গ্যাস বিক্রি কাপ্তাই ব্লাড ব্যাংকের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক বিশেষ ক্যাম্পেইন জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজের মালিকপক্ষের নতুন ঘোষণা
বদলে গেল আবুতোরাবের মাছ বাজার

বদলে গেল আবুতোরাবের মাছ বাজার

ফিরোজ মাহমুদ, মিরসরাই || উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বাজার আবুতোরাব। সপ্তাহে দু-দিন বসে এবাজারে হাট। সোমবার এবং শুক্রবারে কেনা বেচার ধুম পড়ে ঐতিহ্যবাহী এ বাজারে। ভোর থেকে শুরু হয়ে চলে রাত ১০টা পর্যন্তা।

মাছ বাজারে বর্ষায় বৃষ্টির পানি থৈ থৈ করলেও বর্তমানে চিত্র পাল্টিয়ে যায়। সম্প্রতি অবকাঠামোগত উন্নয়ন করেন মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আবুতোরাব বাজার কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার। সরকারি বাজেট থেকে নির্মাণ করা হয় মাছ বাজারের সেড।

তবে অবকাঠামোগত উন্নয়ন হলেও উন্নত হয়নি জেলেদের সেই পুরোনো পঁচা মাছ তাজা করার পদ্ধতি। চলতি মাসের ১৩ তারিখ শুক্রবার মাছ বাজার ঘুরে দেখা যায় রং মিশ্রিত সাগরের চোট-বড় মাছ। মেডিসিন দিয়ে ড্রামের পানিতে জিঁইয়ে রাখা হয়েছে বিভিন্নজাতের মাছ।

সম্প্রতি রংমিশ্রিত মাছের ছবি দিয়ে এ প্রতিবেদক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেন “আবুতোরাবে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ রং মিশ্রিত মাছ”। সেটি নজরে আসে উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ভুক্তভোগী সহ এলাকার মানুষের। ক্ষোভ ঝাড়তে দেখা যায় অনেকের।
ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা চলার পরের বাজারেই আসে পরিবর্তন।

রং ড্রাম বিহীন মাছে পরিনত হয় আবুতোরাব বাজার। এমন পরিবর্তনের কথা এক মাছ বিক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন চেয়ারম্যান কড়া নির্দেশে রং ও ড্রাম সরানো হয়েছে। কমেছে মাছের দামও। এক কেজি লইট্টা শুক্রবারে বিক্রি হয় ১২০-১৪০টাকা। আজ তা নেমে আসে ৮০-১০০ টাকায়। এক কেজি তেলাপিয়া ১৭০-১৯০ টাকা বিক্রি করলে আজ সেটি বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকা।

এবিষয়ে মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার বলেন, ফেজবুকে স্ট্যাটাসটি আমার নজরে আসলে সাথে সাথে আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চৌকিদার পাঠিয়ে তাদের ওই রং মশ্রিত মাছ বিক্রি করা বন্ধ করি। এবং এধরনে মাছ বাজারে বিক্রি হলে কঠোর শাস্তির হুঁশিয়ারি করেন তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT