রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ০৪:০৪ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
চট্টগ্রামস্থ ছাগলনাইয়া সমিতির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশেষ অভিযানে ৬ গ্যাংয়ের ৩৩ জন আটক, দেশী অস্ত্র উদ্ধার ভালো আছেন খালেদা জিয়া ঈদকে ঘিরে জাল নোট গছিয়ে দিত ওরা কুতুব‌দিয়ায় নতুন জামা পেল ১৩৫ এতিম ছাত্র-ছাত্রী মানিকছড়িতে গণ ইফতার মাহফিল সীতাকুণ্ডে লরি চাপায় পথচারী যুবক নিহত সীতাকুণ্ডে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু রামগড়ে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিজিবির পুরস্কার ও সনদ বিতরন লাইসেন্স বিহীন ফিলিং স্টেশন স্থাপন করে কার্ভাড ভ্যানে চলছে অবৈধ গ্যাস বিক্রি কাপ্তাই ব্লাড ব্যাংকের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক বিশেষ ক্যাম্পেইন জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজের মালিকপক্ষের নতুন ঘোষণা
নওগাঁয় দুই সাংবাদিককে পেটালো সন্ত্রাসীরা

নওগাঁয় দুই সাংবাদিককে পেটালো সন্ত্রাসীরা

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ নওগাঁর সাপাহারে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে দুই সাংবাদিক হামলার শিকার হয়েছেন। এ সময় এক ক্যামেরা পারসনকে পিটিয়ে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। বুধবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে সাপাহার উপজেলা সদরের জিরোপয়েন্ট এলাকায় গিয়াস মার্কেটে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়।

আহত দুই সাংবাদিক হলেন- বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আইয়ের প্রতিনিধি ও নওগাঁ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি কায়েস উদ্দীন এবং এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের প্রতিনিধি রায়হান আলম। সন্ত্রাসীরা এটিএন নিউজ ও এটিএন বাংলার ক্যামেরাম্যান সুমন ইসলামকেও মারধর করে। তারা সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

সাংবাদিক রায়হান আলম  অভিযোগ করেন, ‘সাপাহার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলীর বিরুদ্ধে সাপাহার সদরের জিরোপয়েন্ট এলাকায় গিয়াস মার্কেট নামে একটি বিপণিবিতান দখলের ঘটনায় মঙ্গলবার মামলা হয়। বিষয়টি অনুসন্ধানে ঘটনাস্থলে তথ্য সংগ্রহ করছিলাম আমরা। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ৭/৮জন সন্ত্রাসী আমাদের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। লাঠি ও চেলা কাঠ দিয়ে তারা আমাদের মারধর করে। হামলাকারীরা মারধর করে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আমাদের উদ্ধার করে।’

সাংবাদিক কায়েস উদ্দীন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতা শাহজাহান আলীর নির্দেশে আমাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় আমরা আইনের আশ্রয় নেবো। আশাকরি, পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনবে।’

এদিকে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ নেতা শাহজাহান আলী বলেন, ‘এ হামলার ঘটনায় আমার কোনও হাত নেই। সাংবাদিকের সঙ্গে আমার কোনও বিরোধ নেই। বিপণি বিতান দখলের বিষয়ে বিরোধী পক্ষ আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। আমি আদালতেই এর জবাব দেবো।’

সাপাহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আলম শাহ বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ঘটনা তদন্ত করে প্রকৃত হামালাকারীদের শনাক্ত করে দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

জানা যায়, ১৯৮৪ সালে ক্রয় সূত্রে পাওয়া চার শতক জমিতে বিপণিবিতান নির্মাণ করেন গিয়াস উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। যা গিয়াস মার্কেট নামে পরিচিত। গিয়াস মারা যাওয়ার পর তার ওয়ারিশরা দীর্ঘদিন ধরে ওই মার্কেট ভাড়া দিয়ে ভোগদখল করছিলেন। কিন্ত গত সোমবার (৮ জানুয়ারি) শাহজাহান আলীর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী ওই বিপণিবিতানের ভাড়াটিয়াদের বের করে দিয়ে তালা লাগিয়ে দখলে নেন। এ ঘটনায় ওই বিপণিবিতানের মালিক মৃত গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী হাজেরা বেগম সাপাহার সহকারী সিনিয়র জজ আদালতে মামলা করেন।

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT