সোমবার, ২২ Jul ২০২৪, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
চট্টগ্রামস্থ ছাগলনাইয়া সমিতির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশেষ অভিযানে ৬ গ্যাংয়ের ৩৩ জন আটক, দেশী অস্ত্র উদ্ধার ভালো আছেন খালেদা জিয়া ঈদকে ঘিরে জাল নোট গছিয়ে দিত ওরা কুতুব‌দিয়ায় নতুন জামা পেল ১৩৫ এতিম ছাত্র-ছাত্রী মানিকছড়িতে গণ ইফতার মাহফিল সীতাকুণ্ডে লরি চাপায় পথচারী যুবক নিহত সীতাকুণ্ডে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু রামগড়ে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিজিবির পুরস্কার ও সনদ বিতরন লাইসেন্স বিহীন ফিলিং স্টেশন স্থাপন করে কার্ভাড ভ্যানে চলছে অবৈধ গ্যাস বিক্রি কাপ্তাই ব্লাড ব্যাংকের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক বিশেষ ক্যাম্পেইন জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজের মালিকপক্ষের নতুন ঘোষণা
এবার ফারমার্স ব্যাংকের এমডিকে অপসারণ

এবার ফারমার্স ব্যাংকের এমডিকে অপসারণ

যত্রতত্র  ঋণ বিতরণ সংক্রান্ত অনিয়মে পরিচালনা পর্ষদকে সহায়তা করার অভিযোগে এবার ফারমার্স ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম শামীমকে অপসারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

মঙ্গলবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কার সাহা। তিনি বলেন, ‘ব্যাংক কোম্পানি আইনের ৪৬ ধারা অনুযায়ী তাকে অপসারণ করা হয়েছে।’
জানা গেছে, ঋণ বিতরণ সংক্রান্ত অনিয়মে পরিচালনা পর্ষদকে সহায়তা করার অভিযোগে এ কে এম শামীমকে গত ১৩ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের স্থায়ী কমিটিতে ডাকা হয়েছিল। এই কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে তাকে পদ থেকে অপসারণ করা হলো। এর আগে গত ২৬ নভেম্বর এ কে এম শামীমকে অপসারণে নোটিশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। তিনি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জবাব দিলেও তা সন্তোষজনক না হওয়ায় তাকে এই কমিটিতে ডাকা হয়েছিল।
প্রসঙ্গত, এর আগে একই প্রক্রিয়ায় গত ৬ ডিসেম্বর অপসারণ হয়েছিলেন এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের এমডি দেওয়ান মুজিবর রহমান, গত বছরের ৩০ জুন অপসারণ হয়েছিলেন রাষ্ট্রায়ত্ত অগ্রণী ব্যাংকের এমডি সৈয়দ আবদুল হামিদ ও ২০১৪ সালের ২৫ মে অপসারণ করা হয়েছিল বেসিক ব্যাংকের এমডি কাজী ফখরুল ইসলামকে।

আরও জানা গেছে, তারল্যসংকটে পড়ে নিয়ম অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংকে টাকা জমা রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে ব্যাংকটি। এ ছাড়া গ্রাহকরা চেক দিয়েও টাকা পাচ্ছেন না। এসব কারণে ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম শামীমকে কেন অপসারণ করা হবে না, তা জানতে চেয়ে চিঠি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) ব্যাংকটিতে রাখা তাদের মেয়াদোত্তীর্ণ আমানত সুদাসলে তুলতে গেলে কয়েক দফায় চেক ডিজঅনার হওয়ার ঘটনা ঘটে। এমন পরিস্থিতিতে ২৭ নভেম্বর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হস্তক্ষেপে ফারমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদ ছেড়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সরকারী হিসাব-সংক্রন্ত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মহীউদ্দীন খান আলমগীর। তিনি ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ ও নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মাহাবুবুল হক চিশতীকেও পদত্যাগ করতে হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজনৈতিক বিবেচনায় অনুমোদন পাওয়া নতুন ৯ ব্যাংকের একটি ফারমার্স ব্যাংক। ২০১৩ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুরুর পরই ঋণ অনিয়মে জড়িয়ে পড়ে ব্যাংকটি। ২০১৪ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ পরিদর্শনে ব্যাংকটির প্রায় ৫০০ কোটি টাকার ঋণ অনিয়ম ধরা পড়ে। গত সেপ্টেম্বর শেষে ফারমার্স ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বেড়ে হয়েছে ৩৭৭ কোটি টাকা। অর্থাৎ বিতরণ করা ঋণের ৭ দশমিক ৪৫ শতাংশই খেলাপি। মার্চ-জুন সময়ে ব্যাংকটি খেলাপি গ্রাহকদের থেকে মাত্র ৭ কোটি টাকা আদায় করেছে। শীর্ষ ১০ খেলাপি গ্রাহকের কাছেই ব্যাংকটির পাওনা ১৩৪ কোটি টাকা।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT