শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ০৪:৪০ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
চট্টগ্রামস্থ ছাগলনাইয়া সমিতির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশেষ অভিযানে ৬ গ্যাংয়ের ৩৩ জন আটক, দেশী অস্ত্র উদ্ধার ভালো আছেন খালেদা জিয়া ঈদকে ঘিরে জাল নোট গছিয়ে দিত ওরা কুতুব‌দিয়ায় নতুন জামা পেল ১৩৫ এতিম ছাত্র-ছাত্রী মানিকছড়িতে গণ ইফতার মাহফিল সীতাকুণ্ডে লরি চাপায় পথচারী যুবক নিহত সীতাকুণ্ডে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু রামগড়ে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিজিবির পুরস্কার ও সনদ বিতরন লাইসেন্স বিহীন ফিলিং স্টেশন স্থাপন করে কার্ভাড ভ্যানে চলছে অবৈধ গ্যাস বিক্রি কাপ্তাই ব্লাড ব্যাংকের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক বিশেষ ক্যাম্পেইন জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজের মালিকপক্ষের নতুন ঘোষণা
আদালতে খালেদা জিয়া ‘প্রধানমন্ত্রীর হাতে জাদুর কাঠি আছে’

আদালতে খালেদা জিয়া ‘প্রধানমন্ত্রীর হাতে জাদুর কাঠি আছে’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসায় স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত-৫-এ হাজির হয়ে তিনি নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন।

আদালতকে খালেদা জিয়া বলেন, ‘মামলা চলাকাল কোনো কোনো মন্ত্রী প্রকাশ্যে বক্তব্য দিচ্ছেন যে আমাকে কাশিমপুর কারাগারে রাখা হবে। শাসক দলের কোনো কোনো নেতা আমাকে রাজনীতি থেকে বিদায় করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন। এসব বক্তব্য আদালত অবমাননার শামিল। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর হাতে জাদুর কাঠি আছে।’

এর আগে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবীরা তাঁর জামিন স্থায়ী করে দেওয়ার আবেদন জানান। তাঁরা বলেন, খালেদা জিয়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির নেত্রী। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ, বয়স্ক। এই বিবেচনায় তিনি স্থায়ী জামিন পেতে পারেন।

তবে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে জামিনের বিরোধিতা করা হয়। দুদকের আইনজীবী বলেন, খালেদা জিয়া জামিনের অপব্যবহার করেছেন। কাজেই তাঁকে স্থায়ী জামিন দেওয়া উচিত নয়।

শুনানি শেষে আদালত বলেন, জামিন স্থায়ী হবে না। পরবর্তী শুনানির জন্য ৯ নভেম্বর দিন ধার্য করেন বিচারক।

এ ছাড়া খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এই আদালতের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে তা পরিবর্তনের জন্য হাইকোর্টে করা আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কার্যক্রম মুলতবি রাখার আবেদন করেন। আদালত তা নাকচ করে দিয়েছেন।

গত ১৯ অক্টোবর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। ওই দিন বিশেষ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চান খালেদা জিয়া। পরে আদালত জামিন আবেদনের শুনানি শেষে এক লাখ টাকা মুচলেকায় তাঁর জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। আদালত জানান, অনুমতি নিয়ে চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে পারবেন খালেদা জিয়া।

ওই দিন জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনে এক ঘণ্টা বক্তব্য দেন খালেদা জিয়া। তাঁর বক্তব্য শেষ না হওয়ায় পরবর্তী বক্তব্যের জন্য ২৬ অক্টোবর দিন ধার্য করেন। ওই দিনও তাঁর বক্তব্য শেষ না হওয়ায় আজকের দিন ধার্য করা হয়।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর আদালতে হাজির না হওয়ায় অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন বিশেষ জজ আদালত।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT